Welcome

ঈদের আমেজ //সেলিম মিয়া

ঈদ আসছে, আমেজ নেই, বিষাদ ছুঁয়েছে এ জীবনে;মা রয়েছেন একা একা জন্মস্হাণ পৈতৃক আবাসে। রাণী, রত্নরা রয়েছে, পূর্ববর্তী কর্মস্থল বিক্রমপুরে; আমি আছি হাওড় অঞ্চলের অজোয়া এক উগ্র গাঁয়ে। এ গাঁয়ে কারো মহামারীর ব্যথা নেই, নেই কোনো দুঃখ;ইফতার, ত্রাণ, ঈদ সামগ্রী বিতরণ গ্রুপ বিরোধ বিভক্ত।মতবিরোধ, হামলা মারামারি, অনেকেই আহত;আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ, পুলিশ কেও আক্রমণ;অবশেষে লাঠি চার্জ […]

হেমন্ত স্নান//সেলিম মিয়া।

জল শুকানো জো’ধরা মাঠে চৈতালি ফসলের বীজ বপনে উপড়ে ফেলে ঘাস, লাঙ্গলের ফালে মাটির ফালি ফালি চাষ। কিছু দিন পর সবুজ শষ্যে ভরে যায় মাঠ। এ মাঠ যেন সুন্দর বেঁচে থাকার জন্য প্রকৃতির বরণ- ডালায় পৃথিবীর বুকে ছড়ায় শিশিরের ঘ্রাণ, কৃষকের প্রাণ, বাঙলা মায়ের হেমন্ত স্নান।

রহমত// সেলিম মিয়া।

রহমত// সেলিম মিয়া। দরিয়ানগরে নৌকা নিয়েছে ঘাটের বাঁধন ছিঁড়ে।ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়ে হারিয়ে গেছে নোঙর, বদ্ধ হয়েছি সাগরের মাঝে। ভেসে ভেসে একদিন পৌঁছে যাব সৈকতে, রহমতের নেক হায়াত থাকলে।

বধূর বন্ধনে//সেলিম মিয়া

কিছু কিছু কল্পনার ঘর সাজিয়ে, রূপকথার ঘ্রাণ পাই, হৃদয় ব্যাথার বাঁধন খুলে, অস্তিত্বের আলোয় স্বপ্ন দেখি, সুখ খুঁজি বধূয়ার বন্ধনে। স্বপ্নে দেখা রাজকন্যার মতো, সোনার বরন নদী বয়ে যায়, অজানা দেশের আকাশে। একটুও মেঘ নেই সেখানে, তবুও কেন যেন দূরত্বের সৃষ্টি, এনে দেয় দু’চোখে বৃষ্টি।

চেনা পথ//সেলিম মিয়া।

অলস বেলার চেনা পথগুলো,আমায় খুব আকৃষ্ট করে, অতিথি আদর’তো ওঁদের কাছেই পাই। আবেদন নিবেদন হা হুতাশ ওঁরা যত্ন করে শোনে। মধু ভরা রাতে রাজা প্রজা চোর পুলিশ সব চেনে।